শনিবার, ১৫ই জানুয়ারি, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

সব

Singapore
Corona Update

Confirmed Recovered Death
59,879 59,746 29

Bangladesh
Corona Update

Confirmed Recovered Death
543,717 492,059 8,356

মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে মর্গে পড়ে রয়েছে প্রবাসীদের লাশ

বাংলার কণ্ঠ ডেস্ক: | ২৫ মে ২০২০ | ১০:৩০ পূর্বাহ্ণ
মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে মর্গে পড়ে রয়েছে প্রবাসীদের লাশ ফাইল ছবি

মধ্যপ্রাচ্যের সৌদী আরব ও আরব আমিরাতের মর্গে পড়ে রয়েছে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক প্রবাসীদের লাশ। সম্প্রতি মর্গে থাকা লাশগুলো স্থানীয়ভাবে সৌদি আরবেই দাফনের জন্য এক নির্দেশনা জারি করেছে সৌদি সরকার। চলমান করোনা পরিস্থিতিতে দীর্ঘদিন ধরে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় লাশ সংরক্ষণকারী হিমাগারে স্থান সংকুলান হচ্ছে না, কারণ দেখিয়ে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে। দেশটির নিয়মানুযায়ী, হাসপাতালের মর্গে একটি লাশ সর্বোচ্চ ৬০ দিন পর্যন্ত রাখা যায়। এ সময়ের মধ্যে লাশ দাফনের বিষয়ে কোনো সুরাহা না হলে দাফনের বিধান রয়েছে। বেওয়ারিশ লাশের ক্ষেত্রেও একই অবস্থা। তবে বর্তমানে সৌদির মর্গগুলোতে লাশ রাখার জায়গা নেই বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ মিশন সূত্র।

জানা যায়, বিভিন্ন কারণে সৌদিতে মারা যাওয়া বাংলাদেশি প্রবাসীদের লাশ দীর্ঘদিন হিমাগারে পড়ে আছে। করোনার কারণে বিমান চলাচল বন্ধ থাকায় প্রবাসীদের এসব লাশ নিজ দেশে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। এরই মধ্যে মর্গে নতুন লাশ আসছে। কিন্তু নতুন করে কোনো লাশ রাখার জায়গা থাকছে না। তাই বাধ্য হয়েই পুরনো লাশ দাফন করতে হবে। একটি সূত্র জানিয়েছে, শুধু রিয়াদের সিমুশি হাসপাতালের হিমঘরে বাংলাদেশের ৩৫ লাশ রয়েছে। এমনভাবে দেশটির অন্যান্য শহরের বড় বড় সরকারি বেসরকারি হাসপাতালে অনেক লাশ পড়ে আছে। স্বাভাবিক মৃত, হৃদরোগে মৃত, সড়ক দুর্ঘটনায় মৃত এবং হালের করোনায় মৃত লাশের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে।

অন্য আরেকটি সূত্র জানায়, সৌদির পূর্বাঞ্চলে (দাম্মাম, আহসা, জুবাইল, ক্বাতিফ) ৯টি লাশ আছে। পরিবার সিদ্ধান্ত না দেয়ায় মৃতদেহগুলো পড়ে আছে। খুব সম্ভব নতুন নিয়মে বেওয়ারিশ হিসেবে লাশগুলো দাফন হয়ে যাবে।

অন্যদিকে আরব আমিরাতের বিভিন্ন রাজ্যের হাসপাতালের মর্গে পড়ে আছে শতাধিক প্রবাসী বাংলাদেশির মরদেহ। আকাশ যোগাযোগ বন্ধ থাকায় এসব মরদেহ দেশে আনা যাচ্ছে না। কার্গো ফ্লাইটের ব্যবস্থা করে এসব মরদেহ দেশে আনার ব্যবস্থা করতে দাবি জানিয়েছেন বাঙ্গালী কমিউনিটি নেতারা। মরদেহের ৭০ ভাগই চট্টগ্রামের রাউজান, ফটিকছড়ি, রাঙ্গুনিয়া ও হাটহাজারী উপজেলার।

প্রবাসীদের সূত্রে জানা গেছে, আমিরাতে লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকে গত দেড় মাসে অন্তত ১০০ প্রবাসী বাংলাদেশি মারা গেছেন। তাদের বেশিরভাগই মারা গেছেন হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে। কয়েকজন মারা গেছেন ক্যান্সারসহ নানা রোগে। তবে করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃতদের হিসাব এ তালিকায় নেই। সূত্র জানায়, মৃতদের মধ্যে ৪৫ জন রয়েছেন দুবাইয়ের হাসপাতালের মর্গে। আবুধাবিতে রয়েছেন ১০ থেকে ১৫ জন। বাকিরা আল আইন, মুসাফ্ফা, ফুজিরাসহ অন্যান্য রাজ্যে।

বাংলাদেশের সাথে ফ্লাইট চলাচল বন্ধ থাকায় তাদের মরদেহ স্বজনদের কাছে দেশে পাঠানো সম্ভব হচ্ছে না। জানা গেছে, বাঙ্গালী কমিউনিটি ও মৃতদের স্বজনদের পক্ষ থেকে দূতাবাস ও দুবাই কাউন্সিলর অফিসে যোগাযোগ করলেও তারাও কোন ব্যবস্থা নিতে পারছে না। দুবাই কাউন্সিলর অফিস থেকে সেদেশের উচ্চ পর্যায়ে যোগাযোগ করেও সুফল পাচ্ছেন না।

এ ব্যাপারে দুবাই কন্সুলার ইকবাল আহমেদ খান বলেন, আমরা যারপর নাই চেষ্টা করেছি কিন্তু কিছু করতে পারছি না। আমিরাত সরকারের উচ্চ পর্যায়েও যোগাযোগ করেছি কিন্তু কাজ হয়নি। তারপরেও আমরা চেষ্টা করে যাচ্ছি।

আবুধাবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নাছির তালুকদার বলেন, ১০০ টেমিটয়ান্স যোদ্ধার মরদেহ দুবাই, আবুধাবিসহ বিভিন্ন হাসপাতালের মর্গে পড়ে রয়েছে। তাদের দেশে নিতে অবশ্যই পদক্ষেপ নেয়া দরকার। সরকারের উচিত আমিরাত সরকারের সাথে কথা বলে একটি কার্গো ফ্লাইটের ব্যবস্থা করে এসব মরদেহ দেশে ফিরিয়ে নেয়ার ব্যবস্থা করা।

এদিকে মৃতদের পরিবারও উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় রয়েছে অন্তত তাদের মরদেহটা যাতে পায় এবং দাফন করতে পারে।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ
সর্বাধিক পঠিত
এ বিভাগের আরও খবর
আর্কাইভ
শনি রবি সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র
১০১১১২১৩১৪
১৫১৬১৭১৮১৯২০২১
২২২৩২৪২৫২৬২৭২৮
২৯৩০৩১